|| মাটি এন্টারটেইনমেন্ট

প্রকাশিত: ১০:২৫, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১

বিশ্বের সেরা ১০ ধনী ব্যক্তি । Top 10 richest people in the world


Notice: Trying to access array offset on value of type null in /mnt/volume_sgp1_04/met34v6b0d/public_html/details.php on line 293
|| মাটি এন্টারটেইনমেন্ট

প্রকাশিত: ১০:২৫, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১
বিশ্বের সেরা ১০ ধনী ব্যক্তি । Top 10 richest people in the world

ফোর্বস এর মতে সারা বিশ্বে ২০২১ সালে মোট বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা ২৭৫৫ জন, যাদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ১৩.১ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। সেপ্টেম্বর, ২০২১ এর সেরা ১০ ধনী ব্যক্তির একটি তালিকা প্রকাশ করেছে আমেরিকার বানিজ্য ভিত্তিক ম্যাগাজিন ফোর্বস। ফোর্বসের সেই তথ্যের আলোকে আমাদের এই আজকের আয়োজন।

১) জেফ বেজসঃ তালিকার শীর্ষে আছেন ৫৭ বছর বয়সী আমেরিকান এই উদ্যোক্তা। তিনি বিশ্বের সেরা ই-কমার্স কোম্পানি আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা। আমাজনের যাত্রা শুরু হয় সিয়াটেল শহরের একটা ছোট্ট গ্যারেজ থেকে। প্রথম দিকে এটি শুধু অনলাইন ভিত্তিক একটি বইয়ের দোকান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। ধীরে ধীরে বহু পথ পাড়ি দিয়ে আমাজন এখন বিশ্বের সেরা ই-কমার্স কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্যতম।  

২) এলন মাস্কঃ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন টেসলার কো-ফাউন্ডার এবং সিইও ৫০ বছর বয়সী এলন মাস্ক। তিনি বিভিন্ন কোম্পানিতে বিভিন্ন সময়ে বিনিয়োগ করেছেন। তিনি সর্বপ্রথম জিপ২ নামের অনলাইন ভিত্তিক নেভিগেশন সার্ভিসে বিনিয়োগ করেন। এরপর এক্সডটকম নামের অনলাইন ভিত্তিক সর্বপ্রথম পেমেন্ট মেথড কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেন, যা বর্তমানে পেপাল নামে পরিচিত। এরপর দু'টো কোম্পানিই বিক্রি করে দিয়ে তিনি তাঁর তৃতীয় প্রোজেক্ট স্পেসএক্সে আত্মনিয়োগ করেন। স্পেসএক্সের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে সাশ্রয়ী খরচে  মহাকাশ গবেষণার ব্যবস্থা করা। স্পেসএক্সের পর তিনি টেসলা মোটর নামক অটোমেটিক বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরি কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেন। এছাড়াও ২০১৬ সালে তিনি নিউরালিঙ্ক এবং দ্যা বোরিং কোম্পানি নামের দুইটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। নিউরালিঙ্ক মূলত প্যারালাইসিস রোগীদের মস্তিষ্কের সাথে কম্পিউটারের মাধ্যমে যোগাযোগ সৃষ্টি করার মেশিন তৈরির কোম্পানি এবং দ্যা বোরিং কোম্পানি হচ্ছে পাতাল-যানবাহন তৈরির কোম্পানি। 

৩) বার্নার্ড আর্নল্টঃ তালিকার তৃতীয় অবস্থানে আছেন ৭২ বছর বয়সী ফরাসি বিনিয়োগকারী বার্নার্ড আর্নল্ট। তিনি এলভিএমএইচ নামের বিলাসী দ্রব্য তৈরির কোম্পানির সিইও। বিশ্বের সেরা ব্র্যান্ড লুইস ভুইটন, হেনেসি, সেফোরা, খ্রিস্টান ডায়র ইত্যাদির মালিক তিনি।

৪) বিল গেটসঃ তালিকার চতুর্থ অবস্থানে আছেন মাইক্রোসফটের সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ৬৫ বছর বয়সী বিল গেটস। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় তিনি এবং তাঁর বাল্যবন্ধু পল এলেন মিলে মাইক্রো-কম্পিউটারের জন্য নতুন সফটওয়্যার তৈরিতে আত্মনিয়োগ করেন। এই প্রোজেক্ট সফল করতে গিয়ে তিনি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কৃত হন। এরপরের ইতিহাস প্রায় সবারই জানা। এছাড়া ২০০০ সাথে তিনি এবং তাঁর স্ত্রী মিলিন্ডা মিলে বিল এন্ড  মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন। এই কোম্পানি সারাবিশ্বে পোলিও এবং ম্যালেরিয়া রোগের সাথে মোকাবিলা করতে কোটি কোটি ডলার খরচ করে। এছাড়া ২০১৪ সালে ইবোলা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এই কোম্পানি ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দান করে। এবং ২০২১ সালে কোভিড১৯ এর বিরুদ্ধে মোকাবিলায় এই কোম্পানি ১.৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অনুদান দিয়েছে।

৫) মার্ক জাকারবার্গঃ এই তালিকার পঞ্চম স্থানে আছেন ফেসবুকের সহকারী প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও ৩৭ বছর বয়সী মার্ক জাকারবার্গ। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় সহপাঠী বন্ধুদের সাথে মিলে তিনি ফেসবুক প্রতিষ্ঠা করেন। তখন ফেসবুক ব্যবসার দিকে মনোযোগ দিতে গিয়ে তিনি হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কৃত হন। বর্তমানে এই ফেসবুক হচ্ছে বিশ্বের সেরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে অন্যতম। এছাড়া অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদিও ফেসবুক কোম্পানি কিনে নিয়েছে। এছাড়া জাকারবার্গ এবং তাঁর স্ত্রী প্রিসিলা চান মিলে ২০১৫ সালে চান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ নামে একটি দাতব্য সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন। 

৬) ওয়ারেন বাফেটঃ তালিকার ষষ্ঠ অবস্থানে আছেন ৯১ বছর বয়সী ওয়ারেন বাফেট। বিশ্বের সেরা সেরা বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অন্যতম বাফেট ১৯৪৪ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সেই কাগজ ফেরি করে উপার্জিত টাকা থেকে প্রথম ট্যাক্স পরিশোধ করেন। ১৯৬২ সালে বার্কশায়ার হাথাওয়ে নামের টেক্সটাইল কোম্পানিতে তিনি প্রথম শেয়ার কিনেন। এরপর ১৯৬৫ সালে তিনি ঐ কোম্পানির মেজরিটি সংখ্যক শেয়ারের মালিক হন। ধীরে ধীরে তিনি তাঁর বিনিয়োগ আরো বৃদ্ধি করেন। ২০০৬ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত বিল এন্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনে শিশুদের জন্য চ্যারিটিতে তিনি ৪১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার দান করেছেন।    

৭) ল্যারি এলিসনঃ তালিকার সপ্তম স্থানে আছেন বিশ্বের সেরা মাল্টিন্যাশনাল কম্পিউটার টেকনোলজি করপোরেশনের সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ৭৭ বছর বয়সী ল্যারি এলিসন। ১৯৬৬ সালে ইউনিভার্সিটি অফ শিকাগো থেকে বহিস্কৃত হবার পর তিনি ক্যালিফোর্নিয়াতে গিয়ে বিভিন্ন কোম্পানিতে কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে কাজ করেন। ১৯৭৭ সালে তিনি তাঁর অন্য দুই সহকর্মীর সাথে মিলে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট ল্যাবরেটরি(SDL) প্রতিষ্ঠা করেন। এর দুই বছর পর তিনি ওরাকল বাজারে ছাড়েন। ২০১৮ সালে তিনি টেসলা'র সাথে যুক্ত হন। ২০১৬ সালে তিনি ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়াতে ক্যানসার গবেষণার জন্য ২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দান করেন। 

৮) ল্যারি পেইজঃ তালিকার অষ্টম স্থানে স্থান করে নিয়েছেন গুগল এর সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ৪৮ বছর বয়সী ল্যারি পেইজ। ১৯৯৫ সালে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় তিনি তাঁর বন্ধুর সাথে মিলে একটি নতুন সার্চ ইঞ্জিন তৈরির পরিকল্পনা নেন। ১৯৯৮ সালে তারা দুইজন মিলে গুগল প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে গুগল হচ্ছে সেরা সার্চ ইঞ্জিনগুলো মধ্যে অন্যতম। এছাড়া ২০০৬ সালে তিনি ইউটিউব প্রতিষ্ঠা করেন।

৯) সের্গেই ব্রিনঃ তালিকার নবম স্থানে আছেন গুগলের আরেক প্রতিষ্ঠাতা ৪৮ বছর বয়সী সের্গেই ব্রিন। গুগলের অন্যান্য সেবাগুলো হলো জিমেইল, গুগল ওয়ার্কস্পেস, গুগল ক্যালেন্ডার, গুগল ডকস, গুগল মিট, গুগল চ্যাট, গুগল শীট ইত্যাদি। 

১০) মুকেশ আম্বানিঃ তালিকার দশম স্থানে আছেন ৬৪ বছর বয়সী মুকেশ আম্বানি। তিনি রিলায়েন্স কোম্পানির প্রধান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক। রিলায়েন্স কোম্পানি প্রথমত তাঁর বাবা ধীরুভাই আম্বানি একটি টেক্সটাইল মিল দিয়ে শুরু করেন।  এরপর মুকেশ আম্বানি এই কোম্পানিতে তেল, গ্যাস এবং টেলিকম সেক্টরে ব্যবসার বিস্তার ঘটান।   

 লেখক: অসীম নন্দন